মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

সাম্প্রতিক কর্মকান্ড

(Overview Performance of Upazila Agriculture Office, Fulpur, Mymensingh)

 

 

সাম্প্রতিক  অর্জন, চ্যালেঞ্জ এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা :

 

সাম্প্রতিক বছরসমূহের (৩ বছর) প্রধান অর্জনসমূহ :

 

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আওতায় ময়মনসিংহ জেলার ১৩টি উপজেলার মধ্যে ফুলপুর অন্যতম। সরেজমিন উইং এর কার্যক্রমসমূহ বাসত্মবায়নের জন্য এই উপজেলা সকল শ্রেনীর কৃষকদের জন্য লাগসই ও টেকসই উন্নত কৃষি প্রযুক্তি বিসত্মারের এ মহান দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। ক্রমহ্রাসমান চাষযোগ্য জমি থেকে ক্রমবর্ধমান জনগোষ্ঠির খাদ্য ও পুষ্টি চাহিদা পূরণের লÿÿ্য খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের ধারাবাহিকতা রÿা করা বড় চ্যালেঞ্জ হলেও কৃষকদের চাহিদা অনুযায়ী প্রযুক্তি হসত্মামত্মরের মাধ্যমে বিগত তিন বছরে চাল, গম, ভহট্টা, আলু ও শাক সব্জীর উৎপাদন বৃদ্ধি করতে সÿম হয়েছে। সম্প্রসারণ কার্যক্রম জোরদারকরণের মাধমে বিগত তিন বছরে এ উপজেলায় চালের মোট উৎপাদন হয়েছে ২,২৩,৬৮৫ মেঃ টন, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে মোট খাদ্য শস্য (চাল+গম+ভট্টা) উৎপাদন হয়েছে ৭৫,০৬৪ মেঃ টন এবং ২০১৫-১৬ এর তুলনায় ২০১৬-১৭ অর্থবছরে মোট খাদ্য শস্য (চাল+গম+ভট্টা) উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে ৬,৯২৫ মেঃ টন। খাাদ্য শস্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের লÿÿ্য বিভিন্ন ফসলের আধুনিক ও ঘাত সহিষ্ণু জাত, পানি সাশ্রয়ী প্রযুক্তি, সুষম মাত্রায় সার ব্যবহার, পার্চিং, আধুনিক চাষাবাদ, গুটি ইউরিয়ার ব্যবহারবৃদ্ধি, মানসম্পন্ন বীজ উৎপাদন ও সংরÿণ, মাটির স্বাস্থ্য সুরÿায় জৈব ও সবুজ সার তৈরী ও ব্যবহার বৃদ্ধি ইত্যাদি প্রযুক্তি সম্প্রসারণে সাফল্য অর্জিত হয়েছে।মোট জনগোষ্ঠির প্রায় অর্ধেক নারীকে কৃষিতে সম্পৃক্তায়নের লÿÿ্য নারীসহ বিগত দুই বছরে প্রায় ১,০২০ জন কৃষক/কৃষাণীকে লাগসই আধুনিক প্রযুক্তির উপর প্রশিÿণ প্রদান করা হয়েছে।

 

সমস্যা এবং চ্যালেঞ্জসমূহ :

 

দেশে প্রতি বছর চাষযোগ্য জমি হ্রাস পাওয়ায় ক্রমবর্ধমান জনগোষ্ঠির খাদ্য ও পুষ্টি চাহিদা পূরণার্থে টেকসই ফসল উৎপাদন নিশ্চিতকরণ, জলবায়ুগত পরিবর্তন জনিত ঝুঁকি মোকাবেলা ও দূর্যোগপূর্ণ এলাকায় চাহিদা ভিত্তিক প্রযুক্তি সম্প্রসারণ, জমির স্বাস্থ্য, উর্বরতা শক্তি রÿার মাধ্যমে জমির উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি, ক্রপজোনিং,সেচ কার্যে ভূ-গর্ভস্থ পানির ব্যবহার কমিয়ে ভূ-উপরিস্থ পানির দÿ ব্যবহার, সুষম মাত্রায় ও দÿভাবে সারসহ অন্যান্য উপকরণ ব্যবহার নিশ্চিতকরণ, খামার যান্ত্রীকিকরণ, দ্রম্নত ও সহজে প্রযুক্তি সম্প্রসারণে ই-কুষি প্রবর্তন, গবেষণা-সম্প্রসারণ-কৃষক সমন্বয় সাধন শক্তিশালীকরণ, কৃষিতে নারীর সম্পৃক্তকরণ এবং দÿতা বৃদ্ধিকরণ, সম্প্রসারণ কর্মীর দÿতা উন্নয়ন এবং কৃষক/কৃষানীদের প্রযুক্তিগত জ্ঞান ও দÿতা বৃদ্ধিকরণ।

 

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা :

 

মাটির স্বাস্থ্য সুরÿা ও সার ব্যবস্থাপনা, পরিবেশ বান্ধব প্রযুক্তি সম্প্রসারণ, জলবায়ুগত পরিবর্তনের কারনে সম্ভাব্য দূর্যোগপ্রবণ এলাকায় উপযোগী কৃষি প্রযুক্তি সম্প্রসারণ,সেচ কার্যে  ভূ-উপরিস্থ ও বৃষ্টির পানির দÿ ব্যবহার, চাষী পর্যায়ে উন্নতমানের বীজ উৎপাদন, সংরÿণ ও বিতরণ, মানসম্পন্ন ও রপ্তানীযোগ্য ফল ও সবজী চাষ এলাকা সম্প্রসারণ, বসতবাড়ির আঙ্গিনার কার্যকর ব্যবহার, শস্য বিন্যাসে ডাল,তেল, মসলা ও সবজী জাতীয় ফসল অমর্ত্মভূক্ত করে ফসলের বহুমূখীতা এবং নিবিড়তা বৃদ্ধি, নিরাপদ খাদ্য উৎপাদন, সম্প্রসারণ কর্মীর প্রযুক্তিগত জ্ঞান ও দÿতা উন্নয়ন, কৃষক/কৃষাণীদের প্রযুক্তিগত জ্ঞান বৃদ্ধিকরণ, দ্রম্নত প্রযুক্তি বিসত্মারে ই-কৃষি প্রবর্তন, খামার যান্ত্রীকীকরণ, শুদ্ধাচারকৌশল প্রণয়ন ও বাসত্মবায়নের মাধ্যমে আর্থিক ব্যবস্থাপনা উন্নয়ন।

 

২০১৭-১৮ অর্থ বছরের সম্ভাব্য প্রধান অর্জনসমূহ :

 

  • সম্প্রসারণ কার্যক্রম জোরদারকরণের মাধ্যমে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে চালের মোট উৎপাদন ৭৪,৭৫৫ মেঃটন এবং মোট খাদ্য শস্যের (চাল+ গম+ ভূট্টা) উৎপাদন লÿমাত্রা ৭৫,২০৪ মেঃ টন।
  • লাগসই আধুনিক প্রযুক্তির উপর ১,০৫০ কৃষক কৃষাণীকে প্রশিÿণ প্রদান।
  • আধুনিক প্রযুক্তির উপর ৩৬ জন সম্প্রসারণ কর্মীকে প্রশিÿণ প্রদান।
  • আধুনিক জাত ও প্রযুক্তি সম্প্রসারণে ৩৫০টি প্রদর্শনী স্থাপন।
  • কৃষক পর্যায়ে ইউরিয়া ও নন-ইউরিয়া সারের সুষম ব্যবহার বৃদ্ধিকরণ এবং ফসল আবাদে ৩০% জমিতে গুটি ইউরিয়া ব্যবহার নিশ্চিতকরণ।
  • জমিতে জৈব সার প্রয়োগ উৎসাহিতকরণে ৩১০ জন কৃষককে প্রশিÿণ প্রদান এবং কৃষকের বসত ভিটায় ১৫০০ টি কম্পোষ্ট সত্মূপ স্থাপন।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter